গর্ভাবস্থায় অসময়ে পানি ভাঙ্গা

গর্ভাবস্থায় যোনীপথে একটু একটু করে সব সময় তরল পদার্থ নির্গত হয়ে যদি পরিধেয় বস্ত্র ভিজে যায়। এ অবস্থা গর্ভাবস্থার ২৮ সপ্তাহের পর থেকে প্রসবের পূর্বপর্যন্ত যে কোন সময়ে হলে তাকে লিকিং মেমব্রেন বা ‘পানি ভাঙ্গা’ বালা হয়।

লিকিং মেমব্রেন বা পানি ভাঙ্গার ঘটনা যদি গর্ভাবস্থায় ২৮ সপ্তাহের আগে ঘটে তখন তাকে প্রি-ম্যাচিউর লিকিং মেমব্রেন বা অপরিণত সময়ে পানি ভাঙ্গা বলা হয়। অপরিণত সময়ে পানি ভাঙ্গার কারনে নির্ধারিত সময়ের আগেই প্রসব হতে পারে, যা ঝুঁকিপূর্ণ। সাধারনভাবে লিকিং মেমব্রেন হলে বা পানি ভাঙ্গলে যোনীপথে সব সময় সামান্য করে তরল আসতে থাকে যার দাগ কাপড় বা স্যানিটারী প্যাডে লাগতে পারে। নির্গত তরলের রঙ দেখার জন্য স্যানিটারী প্যাড পরখ করা জরুরি। এছাড়া আল্ট্রাসনোগ্রাম করেও এ বিষয়ে জানা যায়। সরাসরি যোনীপথে স্পেকুলাম দিয়ে পর্যবেক্ষণ করেও চিকিৎসকেরা এটা বুঝতে পারেন।

যদি গর্ভাবস্থার ৩২ সপ্তাহে পানি ভাঙ্গে তবে একটু অপেক্ষা করে দেখতে হবে গর্ভবতীর অবস্থার অবনতি হচ্ছে কিনা। যদি অবস্থার অবনতি ঘটতে থাকে তবে প্রসবের সূচনা করতে হবে।

Sharing is caring!

Comments are closed.

error: Content is protected !!