বাচ্চারা চোখ ডলে- কারণ এবং নিরারন ব্যবস্থাগুলি

শিশুরা তাদের চোখ ডললে বা ঘষলে সম্ভবত সেটি সবচেয়ে আকর্ষণীয় একটা জিনিস হতে পারে যেটি আপনি দেখতে পাবেন।তাদের সেই গোলাকার কৌতুহলী চক্ষুগোলকগুলির উপর সমানে ঘর্ষণরত তাদের ক্ষুদ্র মুষ্ঠিদ্বয় নিশ্চিতভাবে আপনার হৃদয় আকর্ষণ করবে।সাধারণত শিশুরা তাদের চোখ ঘষে যখন তারা ক্লান্তবোধ করে অথবা তাদের চোখ জুড়ে ঘুম ঢুলে আসে,কিন্তু কিছু ক্ষেত্রে ধূলো কিম্বা চোখের পাতা জাতীয় কোনও কিছু তাদের চোখের অভ্যন্তরে প্রবেশ করার কারণে,চোখে সংক্রমণের জন্য অথবা এমনকি অ্যালার্জির কারণেও আপনার সন্তান হয়ত তার চোখে ব্যথা অনুভব করে থাকতে পারে।

আপনার ছোট্টটি তার চোখগুলিকে ঘষতে থাকাটি উপরিল্লিখিত সকল কিছুর ক্ষেত্রেই একটি সংকেত লক্ষণ হতে পারে।আপনার সতর্ক থাকা প্রয়োজন,যাতে আপনার ছোট্টটি তার দৃঢ় মুষ্ঠির দ্বারা নিজের ক্ষুদ্র চক্ষুযুগল দুটি ঘষার মাধ্যমে দুর্ঘটনাক্রমে নিজেকে আঘাত করে না বসে,আর তা প্রতিরোধে সহায়তা করার জন্য আপনি সবকিছু করতে পারেন।আসুন এমন কিছু কারণের দিকে দৃষ্টি দেওয়া যাক যা শিশুদের চোখ ডলার কারণ হতে পারে।

শিশুরা তাদের চোখ ডলার কারণ কি? শিশুরা কেন তাদের চোখ ডলে তার পিছনে নানাবিধ কারণ আছে-

১.তাদের ঘুম পেয়ে যায়
কখনও কখনও আপনার বাচ্চা তার চোখগুলি ডলার পাশাপাশি হাইও তুলতে পারে।এর অর্থ হল এই যে সে ক্লান্তিবোধ করে এবং তার ঘুম পেয়ে থাকে।যখন সে ক্লান্ত হয়ে পড়ে তার চোখগুলি শ্রান্ত হয়ে ভারাক্রান্ত হয়ে ওঠে,আর সেই কারণেই শিশুরা তাদের চোখগুলি ডলতে থাকে যাতে তাদের চোখের পাতা এবং চোখের পেশীর চারপাশের অঞ্চলের ব্যথা থেকে কিছুটা উপশম পেতে পারে,ঠিক তাদের মালিশ করার সময়ের মতই।এটি তাদের একটি দীর্ঘ ভাল ঘুমের সময়েরই ইঙ্গিত দিয়ে থাকে।

২.তাদের চোখগুলি শুষ্ক হয়ে ওঠে
আপনার বাচ্চা আবার তার চোখগুলিকে ঘষে থাকতে পারে যখন সেগুলি বেশ শুষ্ক হয়ে ওঠে।চোখের ভিতরে চোখের জলের একটা আস্তরণ দ্বারা আচ্ছাদিত থাকে,কিন্তু যদি বাতাসের মধ্যে এটি বেশি সময় ধরে উন্মোচিত থাকে তবে তা বাষ্পিভূত হয়ে যায়।যা চোখের এই শুষ্কতার কারণে অস্বস্তির সৃষ্টি করে,এবং আপনার সন্তান প্রবৃত্তিগতভাবেই তার চোখগুলি ডলতে পারে সেই অস্বস্তি কাটিয়ে ওঠার জন্য বিশেষত,চোখ ডলার কারণে চোখের জল উৎপন্ন হয় যা তার চোখের আদ্রতা পুনরায় ফিরিয়ে আনতে সহায়তা করে।

৩. তারা কৌতুহলী হয়ে ওঠে
আপনার চোখগুলি বন্ধ করে সেগুলিকে ডলতে থাকার সময় নেত্র পল্লবের ভিতরে কিছু আলো এবং নিদর্শন দেখতে পাওয়াকে আপনি হয়ত লক্ষ্য করতে পারেন।আপনার ছোট্ট সোনাটির মধ্যে হয়ত সম্প্রতি তার চোখ ঘষার সঞ্চালন দক্ষতাটি বিকাশ পেয়েছে এবং সেই নতুন দক্ষতাটিকে হয়ত সে পরীক্ষা করছে।চোখ ডলার সময় আপনার সোনা নিদর্শনগুলি দেখে হয়ত বিষ্মিত হয়ে উঠতে পারে এবং সেটির অভিজ্ঞতা পুনরায় পাওয়ার জন্য বারংবার চোখ ডলার চেষ্টা করে থাকতে পারে।

৪.তাদের চোখের অভ্যন্তরে কিছু প্রবেশ করে থাকতে পারে
আপনার শিশুর চোখের ভিতরে কিছু প্রবেশ করে থাকলে তার মধ্যে হওয়া অস্বস্তি, জ্বলন ও বিরক্তির কারণে সে হয়ত তার চোখগুলিকে অনবরত ডলে যেতে পারে।সেটি ধূলিকণা,চোখের পাতা অথবা শুকনো শ্লেষ্মাও হয়ে থাকতে পারে।এটি মনে রাখা গুরুত্বপূর্ণ যে বারংবার চোখ পিট পিট করা বা চোখ থেকে ক্রমশ জল গড়িয়ে পড়াও উল্লিখিত বিষয়ের লক্ষণ হতে পারে।যদি আপনার ছোট্টটির চোখে কোনও অস্বস্তি হয়ে থাকে,একটি ভিজে নরম কাপড়ের টুকরো দিয়ে তার চোখগুলি এবং মুখটি মুছিয়ে দিন যাতে কোনও কিছু তার চোখের ভিতরে ঢুকে না থাকে।এরপর পরিষ্কার ঠাণ্ডা জল দিয়ে আপনার বাচ্চার চোখগুলি ধুয়ে দিন(চোখের ভিতরে কখনই গরম জল ব্যবহার করবেন না)।যখন আপনি এটি সম্পাদন করবেন তখন আপনার শিশুটির মাথাটিকে কাউকে দিয়ে ধরিয়ে রাখা অথবা এই কাজে সহায়তার জন্য অন্য কারুর থেকে পর্যাপ্ত সহযোগীতা পাওয়ার বিষয়টিকে সুনিশ্চিত করুন।

যদি আপনার সন্তানের চোখের কোণায় কিছু আটকে থাকতে দেখে থাকেন,তবে সেটিকে বের করে আনার জন্য আপনার হাতের আঙ্গুলের বদলে হালকা গরম জলে ভিজানো একটি পরিষ্কার কাপড়ের টুকরো অথবা তুলোর বল ব্যবহারের চেষ্টা করতে পারেন।আর এটি করার পরেও যদি চোখ পিটপিট করা বা চোখের জল পড়া অব্যহত থাকে,তবে হতে পারে যে বাইরের কিছু কণা তখনও তার চোখের ভিতরে আটকে রয়েছে।এই ক্ষেত্রে সবচেয়ে ভাল হল তাকে একজন ডাক্তার দেখিয়ে নেওয়া।

৫.যন্ত্রণাদায়ক অথবা চুলকানি যুক্ত চোখ
শিশুদের চোখ ডলার অন্য আরেকটি কারণ হতে পারে অ্যালার্জি অথবা একটি সংক্রমণ যার সাথে নিজে থেকেই চুলকানি অথবা যন্ত্রণা যুক্ত থাকতে পারে।আপনার সন্তানের চোখের সংক্রমণের উপসর্গগুলির মধ্যে অন্তর্ভূক্ত থাকতে পারে চোখ ফুলে ওঠা অথবা চোখ লাল হয়ে যাওয়া,স্রাব,জ্বর অথবা সমানে কান্নাকাটি করা।এই সব ক্ষেত্রে একজন ডাক্তারের সাথে আলোচনা করে নেওয়া সবচেয়ে ভাল যাতে তিনি আপনার সন্তানের চোখের সংক্রমণ বা অ্যালার্জিটিকে ঠিকভাবে শনাক্ত করে তার চিকিৎসা শুরু করতে পারেন।

যন্ত্রণাদায়ক অথবা চুলকানি যুক্ত চোখ

কীভাবে আপনি শিশুদের চোখ ডলা থেকে বাধা দিতে পারেন?
আপনার ছোট্টটিকে প্রায়ই তার চোখ ডলা থেকে রক্ষা করতে আপনার কিছু ব্যবস্থা গ্রহণের প্রয়োজন,কারণ এটি তার ছোট্ট চোখগুলিতে আঘাত লাগার বা আঁচড়ে যাওয়ার কারণ হয়ে উঠতে পারে।আর সেটি হওয়া প্রতিরোধ করার কিছু উপায় এখানে দেওয়া হলঃ

যদি আপনার বাচ্চার ক্রমাগত তার চোখ ডলার অভ্যাস থাকে তবে আপনার ছোট্টটির হাতগুলিতে দস্তানা পরিয়ে ঢেকে রাখার চেষ্টা করুন।এটি তার ত্বকে আঁচড় লাগা বা জ্বালন হওয়া থেকে রক্ষা করবে।
যদি আপনি আপনার বাচ্চাকে হাই তোলার সাথে সাথে চোখ ডলতে দেখেন তবে অবিলম্বে তাকে ঘুম পাড়িয়ে দিন।আপনার শিশুর জন্য একটি শয়নকালীন রুটিন স্থির করে তার সাথে যুক্ত থাকুন।আপনার বাচ্চা একবার এটিতে অভ্যস্থ হয়ে গেলেই তার মধ্যা আর কোনও ক্লান্তিবোধ থাকবে না আর সেই কারণে তার মধ্যে আর চোখ ডলাও দেখা যাবে না।
আপনার শিশুর চোখের ভিতরে বাইরের কোনও কণাবিশেষ ঢুকে যাওয়া প্রতিরোধ করতে তাকে এমন কোনও জায়গায় নিয়ে না যাওয়ারই চেষ্টা করুন যেখানে প্রচুর ধূলো ওড়ে।আর যদি আপনাকে তাকে সেখানে একান্তই নিয়ে যেতে হয় তবে সেইসব জায়গায় তাকে নিয়ে যাওয়ার আগে ভালভাবে তার চোখ নাক ঢেকে সুরক্ষিত রাখুন।
ভীষণ জোরে জোরে চোখ ডলার ঝুঁকিগুলি
যদিও ঘুম পাওয়ার মত কারণগুলির জন্য আলতো চোখ ডলার ক্ষেত্রে ঝুঁকির সম্ভাবনা সেরকম থাকে না তবে ভীষণভাবে জোরে জোরে চোখ ডলার ক্ষেত্রে বেশ কয়েকটি ঝুঁকি থাকতে পারে।মাঝে মধ্যে অথবা জোর দিয়ে চোখ ডলার ক্ষেত্রে যে সকল ঝুঁকিগুলি থাকতে পারে তার কয়েকটি এখানে উল্লিখিত হলঃ

১.সংক্রমণের ঝুঁকি বেড়ে যায়

শিশুরা স্বভাবতই কৌতুহলী হয়ে থাকে এবং তার চারপাশের সবকিছুই সে স্পর্শ করে।সেই সকল লোকগুলির কথা না উল্লেখ করাই ভাল যারা ছোট শিশুগুলিকে জড়িয়ে ধরার সময় তাদের দেহ বাহিত জীবাণুগুলিকে শিশুদের দেহে স্থানান্তরিত করে থাকেন।আর সেই জীবাণুগুলিই তাদের চোখে স্থানান্তরিত হওয়ার ঝুঁকি বেড়ে যায় যখন শিশুরা তাদের চোখগুলিকে ডলতে থাকে,যার পরিণাম হিসেবে তাদের চোখে সংক্রমণ হয়ে থাকে।

২.দীর্ঘ মেয়াদে চোখের দৃষ্টি খারাপ করে তোলে
এক নাগাড়ে চোখ ডলার ফলে চোখের কর্নিয়াল কলাগুলি পাতলা হয়ে যায় যা দীর্ঘ মেয়াদে চোখের দৃষ্টি ব্যহত করে।যদিও এর প্রভাবগুলো সংক্রমণের ক্ষেত্রে তাৎক্ষণিকভাবে নাও দেখা দিতে পারে,কিন্তু আপনার সন্তানের বেড়ে ওঠার সাথে তার জীবনের পরবর্তী ধাপে মায়োপিয়া হওয়ার সম্ভাবনা আরও বেড়ে ওঠে।

৩.আঘাত পাওয়ার একটা কারণ হতে পারে
আপনার বাচ্চার চোখের ভিতরে কিছু প্রবেশ করে থাকলে একটি জ্বলন অনুভূত হওয়ার কারণে সে তার চোখগুলিকে তার ছোট ছোট হাত দুটির দ্বারা বেশ জোরের সঙ্গে ঘষতে থাকতে পারে।এটি তাদের চোখের কর্নিয়াতে ঘর্ষণ হওয়ার ঝুঁকি বাড়িয়ে তোলে,যা যন্ত্রণাদায়ক এবং নিরাময় হতে দীর্ঘ সময় নিতে পারে।

আপনার সন্তানের চোখ ডলার অভ্যাসটিকে যদি ক্রমশ বাড়তে লক্ষ্য করেন,ভীত অথবা আতঙ্কিত হবেন না।যদি আপনি মনে করেন যে, কোনও কিছু তার চোখের ভিতরে প্রবেশ করেছে যে কারণে সে অস্বস্তি বোধ করছে এবং তার সাথে যদি আবার তার চোখগুলিকে লাল হয়ে যেতে দেখেন বা ফুলে উঠতে লক্ষ্য করেন তবে ঠাণ্ডা পরিষ্কার জল দিয়ে তার চোখগুলিকে ধুয়ে দিন এবং পূর্বে আলোচিত পদ্ধতিনুসারে চোখের চারপাশ পরিষ্কার করে দিন।চোখের লালচে ভাব অথবা ফুলে ওঠা কমানোর ক্ষেত্রে যদি এই পদ্ধতিগুলি কাজ না করে থাকে বা অব্যহত থেকে যায় বা ক্রমশ বেড়ে যেতে থাকে তবে দেরী না করে আপনার ডাক্তারের সাথে যোগাযোগ করুন।চোখের কোনওরকম লালচে ভাব বা ফুলে ওঠা ছাড়াই যদি বাচ্চার চোখ ডলার অভ্যাসটি অতিরিক্ত মাত্রায় ক্রমশই বজায় রয়ে যায়,সেক্ষেত্রে আরও একবার আপনার ডাক্তারকে দেখিয়ে সবকিছুই যে একদম ঠিকঠাক আছে তা শতভাগ নিশ্চিত করে নেওয়া সবচেয়ে ভাল।সর্বোপরি,কোনও রকম আপোস করাই উচিত নয় বিশেষ করে যখন সেটা আপনার বাচ্চার প্রশ্ন আসে!
cl: banglaparenting

Sharing is caring!

Comments are closed.

error: Content is protected !!