গর্ভকালীন সময়ে শিশুর মস্তিষ্কের খেয়াল

একটি শিশু মায়ের গর্ভে আসার পর থেকে প্রতিনিয়ত তার শারীরিক ও মানসিক বিভিন্ন দিক গঠিত হয়, ধীরে ধীরে তা পূর্ণতা পায়। পূর্নতাপ্রাপ্তির বিভিন্ন ধাপে বিভিন্ন দিক থেকে মা’কে সচেতন থাকতে হয় চলা-ফেরা, খাবার-দাবার সব ব্যাপারেই অনেক সচেতন থাকতে হয়। শিশুর মস্তিষ্কের স্বাভাবিক উন্নতি বজায় রাখতে গর্ভকালীন সময়ে মায়ের যে কাজগুলোর দিকে খেয়াল রাখতে হবে সেগুলো সম্পর্কে চলুন জেনে নেওয়া যাকঃ

  • ১। চিকিৎসকের পরামর্শ অনুযায়ী প্রতিদিন নিয়মিত গর্ভকালীন সময়ের জন্য প্রয়োজনীয় ভিটামিন সাপ্লিমেন্ট গ্রহণ করুন।
  • ২। ওমেগা-৩ সমৃদ্ধ খাবার বেশি বেশি করে খেতে হবে। এটি গর্ভে থাকাকালীন অবস্থায় শিশুর সঠিক পুষ্টি, সঠিক মস্তিষ্ক বিকাশ নিশ্চিত করে। সাধারণত বিভিন্ন রকমের মাছে পর্যাপ্ত পরিমাণে ওমেগা-৩ পাওয়া যায়।
  • ৩। ফল ও বিভিন্ন রঙ বেওরঙ্গের সবজি খাবার প্রতি দিন বিশেষ নজর। প্রতিদিনকার খাবারের তালিকা থেকে এইসব খাবার কোনভাবেই বাদ দেওয়া যাবেনা।
  • ৪। এলকোহল বা তামাকজাত কোন কিছু থেকে সম্পূর্ণ রূপে দূরে থাকতে হবে।
  • ৫। প্রোটিন ও আয়রন সমৃদ্ধ খাবারের দিকে বিশেষভাবে যত্নশীল হতে হবে। এসব শিশুর শরীর ও মস্তিষ্কের পূর্ণাঙ্গ গঠনে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে থাকে।
  • ৬। নিজের ওজনের ব্যাপারে সচেতন হতে হবে। কোনভাবেই প্রয়োজনের অতিরিক্ত ওজন যাতে না গ্রহণ করা হয় সেদিকে লক্ষ্য রাখতে হবে। যদি না সাধারণ ওজনের অধিকারী হয়ে থাকেন তবে তাঁর গর্ভকালীন ওজন ২৫ থেকে ৩৫ পাউন্ড বৃদ্ধি পাবে। কমজন ও বেশি ওজনধারী মায়েদের ক্ষেত্রে এই বৃদ্ধির মাত্রা যথাক্রমে ২৮-৪৪ এবং ১৫-২৫ পাউন্ড।
  • ৭। নিজের পরিষ্কার পরিচ্ছন্নতার দিকে সবসময় সচেতন থাকতে হবে। খাবার তৈরির আগে ও পরে এবং খাবার গ্রহণের আগে ভালোভাবে হাত ধুয়ে নিতে হবে।

Sharing is caring!

Comments are closed.

error: Content is protected !!