শিশুদের মাথার ত্বকের যত্ন, খুশকি ও অন্যান্য সমস্যা দেখা দিলে কি করবেন দেখুন।

স্বাধারণত ২-৬ মাস বয়সি শিশুর মাথায় যে খুসকি দেখা যায় তা তার জন্ম থেকেই নিয়ে আসা (cradle cap dandruff), অনেক সময় কমে আবার বারে যার কারণে মনে হয় নতুন করে খুসকি হয়েছে |

বড়দের খুসকি অপেক্ষা এটি বেশি চিটচিটে ও হলদে রঙের হয়ে থাকে | চোখের পাপরিতেও খুশকি হতে পারে | তবে আপনি যদি স্বাধারণ খুসকিই মিন করে থাকেন সেক্ষেত্রেও সমাধান একই রকম |

শিশুর মাথায় অলিভ অয়েল বা অন্য কোনো বাদাম তেল দিয়ে ২০/৩০ মিনিট রেখে দিন | হাত না ব্যবহার করে তুলার বল দিয়েও তেল লাগাতে পারেন | তারপর নরম কাপড় দিয়ে হালকা ঘসে তেল মুছে দিন |

এবার মাইল্ড কোনো ববি শ্যাম্পু দিয়ে উষ্ণ গরম পানি দিয়ে মাথা ধুইয়ে দিন |

নরম কাপড় দিয়ে মুছে ফেলুন | কিছুদিন করলেই খুসকি চলে যাবে |

যদি বেশি মনেহয় সেক্ষেত্রে সারারাত মাথায় ভ্যাসলিন এর পুরু প্রলেপ দিয়ে রেখে সকালে মুছে ফেলুন | শিশুর কানে যেন পানি চলে না যায় সেদিকে অবশ্যই খেয়াল রাখবেন | আর কখনই নখ দিয়ে খোটা বা জোরে ঘসা যাবে না |

খুশকি বা খুসকি মূলতঃ মাথার লোমকূপ সমূহতে ময়লা জমে ও ছত্রাকের আবির্ভাবের কারণে হয়ে থাকে এবং খুশকি সমস্যার প্রধান শত্রু হলো ডিরমট্রিস সেবেরিক।

মূলতঃ খুশকি সমস্যার প্রাদুর্ভাব ঘটে মাথার ত্বকের উপরের অংশে। এছাড়া মুখে এবং কানে ইহা দেখা যায়। এমনকি ঠোটে, নাকের ছিদ্র থেকে শুরু করে কপাল, ভ্রুতেও ইহা দেখা যেতে পারে।

রোগটি কর্তৃক আক্রান্ত ত্বকের শুষ্কতা কমে যায় এবং শুষ্ক ত্বকের ছোট ছোট মৃত ত্বক খুসকি তৈরিতে সহায়তা করে। তবে ত্বকের শুষ্কতার কারণ যদি খুসকি হয় তবে সহজেই বোঝা যায় কারণ চুল বাদে অন্য যে কোন ত্বকেই খুশকি হোক না কেন তা সহজেই দৃষ্টিগোচর হবে।

Sharing is caring!

Comments are closed.

error: Content is protected !!