আপনি কি বাচ্চার জন্যে কাপড়ের ন্যাপি ব্যবহার করেন? সেটির ভালো ও খারাপ উভয় দিক সম্পর্কে জানতে চান?

আপনি কি সেইসব মায়েদের মধ্যে পড়েন যাঁরা কেনা ডাইপার ব্যবহার করতে দ্বিধা বোধ করেন? এখন এ ব্যাপারে আপাকে আমরা বলতে পারিনা যে আপনার সেটি ব্যবহার করা উচিত কি না তবে চিন্তা করবেন না, আপনাকে আমরা কাপড়ের ডাইপার ব্যবহারের কিছু ভালো দিক ও খারাপ দিক তুলে ধরতে চাই যাতে আপনার সিদ্ধান্ত নিতে কোনো অসুবিধা না হয়।

সুবিধাঃ

১. অর্থনৈতিক

অবশ্যই, একটি কাপড়ের ডাইপারের পেছনে একবারই একটু বড় খরচ হবে কিন্তু সেটি প্যাকেটের ডিস্পোসেবল ডাইপারের তুলনায় বেশ সস্তা ও অধিকবার ব্যবহার করা যায়। আপনাকে শুধুমাত্র কিছু কাপড় ডাইপারের মধ্যে বিনিয়োগ করতে হবে এবং আপনি এটি নোংরা হলে পুনরায় ধুয়ে ব্যবহার করতে পারেন। ক্লোথ ডাইপারের সুবিধা হল প্রতি সপ্তাহে ডিসপোজেবল ডায়াপার আপনাকে কিনতে হবে না।

২. পরিবেশ বান্ধব

ডিসপোজেবল ডাইপারের তুলনায় কাপড় ডাইপার ফেলে দিতে হয় না। তাদের ধুয়ে আবার ব্যবহার করা যেতে পারে। আপনার বাচ্চা পট্টি প্রশিক্ষিত হলে এবং আন্ডারপ্যান্ট পরতে শুরু করার পর, আপনি এখনও কাপড়ের ডায়াপারকে অন্য কাজে ব্যবহার করতে পারেন। তাই এটি বেশ পরিবেশ বান্ধব।

৩. নিরাপদ বিকল্প

ডিসপোজেবল ডাযইপারের মধ্যে রয়েছে জেল এবং রং যা আপনার বাচ্চার চামড়ার জন্যে ক্ষতিকারক হতে পারে – এমনকি হাইপো এলারজেনিক লেবেলযুক্তগুলি আরো ত্বকের ক্ষতি করে। অন্যদিকে কাপড়ের ডাইপার তুলো থেকে তৈরি হয় এবং আপনার বাচ্চার ত্বকে কোনও ক্ষতি করে না।

২. প্রাথমিকভাবে বিশাল বিনিয়োগ

কাপড় ডাইপারের প্রাথমিক খরচ অবশ্যই উচ্চতর যেহেতু কাপড় ডায়াপারগুলি বেশ ব্যয়বহুল। যদি আপনি নিজের দ্বারা কিছু কাপড় ডায়াপার স্যুট বেছে নেন, তবে এটি খরচ কমাবে। অথবা যদি আপনি তাদের সেলাই করতে চান, তাহলে ৩-৪তে কিনলেই হয়ে যাবে।

৩. জল এবং বিদ্যুৎ বিল

কাপড়ের ডাইপার ঘন ঘন পরিবর্তন করতে হলে তাদের হাত দিয়ে ধোয়া বেশ ঝামেলার এবং ওয়াশিং মেশিন ব্যবহার করলে বিদ্যুৎ বিল অধিক বেড়ে যায় যেটি পরিবেশের জন্য ক্ষতিকর, কারণ প্রতিদিন আপনার বাচ্চার ডাইপার ধুতে প্রচুর জল ব্যবহার করতে হবে, কারণ আপনার বাচ্চা বার বার প্রস্রাব করে ফেলবে।

আশা করি এই নিবন্ধটি আপনার বাচ্চার জন্য সবচেয়ে উপযুক্ত এটি বেছে নেওয়ার জন্য যে আপনি কাপড়ের ডাইপার ব্যবহার করবেন কি না। আপনি এই পোস্টটির দ্বারা উপকৃত হলে আমাদের অবশ্যই জানাবেন।

Source:tinystep

Comments are closed.