বাচ্চাদের আমাশয় হলে …

ছয় মাস থেকে পাঁচ বছর বয়সী শিশুদের ওরস্যালাইন, বেবি জিংক,

মায়ের বুকের দুধ, সুজি, খিচুড়ি, পাকা কলা, ভাতের মাড়, ডাব, চিড়ার পানি খেতে দিতে হবে। রেজিস্টার।।

চিকিত্সকের পরামর্শ অনুযায়ী ঔষধ খাওয়াতে হবে।

সাথে অবশ্যই নিয়ম গুলো পালন করতে হবে। বাচ্চাদের প্রয়োজনের তুলনায় কখনোই অতিরিক্ত খাওয়ানো উচিত নয়। বাচ্চাদের খাদ্যতালিকায় যথেষ্ট পরিমান ফাইবার সমৃদ্ধ খাবার,

শাক-সবজি ও ফলমূল খাওয়াতে হবে। খাওয়া শুরু করার আগে, বাচ্চাদের হাত ভালো করে ধোয়ানোর অভ্যাস করাতে হবে।

ঘুমানোর ঠিক আগ মুহূর্তে বাচ্চাদের খাওয়ানো উচিত নয়। এতে করে খাবার হজমে সমস্যা হয়। খাবার খাওয়াবার পর যথেষ্ট রাখতে হবে,

যেন বাচ্চাদের খাদ্য হজমে সাহায্য হয়।

বাচ্চাদের কোন ক্রমেই বাইরের খাবার খাওয়ানোর অভ্যাস করানো উচিত নয়। বাইরের খাবারের ফলে শিশুর শরীরের নানান সমস্যা দেখা দিতে পারে।

তাই বাচ্চাদের খাবার আর দৈনন্দিন অভ্যাসের ব্যপারে সতর্ক থাকুন। আপনার বাচ্চাদের যথাসম্ভব সুস্থ রাখতে পরিষ্কার পরিচ্ছন্নতা বজায় রাখুন।

Sharing is caring!

Comments are closed.

error: Content is protected !!