নবজাতককে মধু খাওয়ানো আমাদের দেশে একটি ব্যাপক প্রচলিত প্রথাI এটি কি শুধুই একটি লোকজ সংস্কার, নাকি এর কোনো স্বাস্থ্যগত কারণ আছে?

এটি একটি প্রচলিত বিশ্বাস যে এতে নাকি বাচ্চাটি মিষ্টভাষী হবে যা নির্ঘাত কুসংস্কার ছাড়া আর কিছুনা। কিন্তু যেহেতু এগুলো জীবাণুমুক্ত নয় তা খাওয়ানোর পর শিশুর বমি, পাতলা পায়খানা বা অন্যান্য পেটের পীড়া দেখা দিতে পারে৷ তাই নবজাতক শিশুকে চিনির পানি বা মধু খাওয়ানো মোটেই উচিত নয়৷ তাছাড়া প্রথম খাদ্য হিসেবে মধু দিলে শিশুর হজমে সমস্যা হতে পারে, তাই এর স্বাস্থ্যগত অপকারিতাই আছে উপকারিতার প্রশ্নই আসেনা। সুতরাং শিশু ভূমিষ্ট হওয়ার পর মায়ের বুকে যে শাল দুধ আসে সেটাই হওয়া উচিত তার প্রথম খাবার। গ্রামের মহিলারা অবশ্য অজ্ঞতা বশত এ দুধ ফেলে দেন। তারা মনে করেন এ ঘন দুধ খাওয়ালে শিশুর অমঙ্গল হবে। ডাক্তারি ভাষায় একে বলে “কেলোস্ট্রাম”। এতে প্রচুর শ্বেত রক্ত কণিকা থাকায় তা রোগের সংক্রামণকে প্রতিহত করে। এ দুধ পান করা শিশুরা পেট ও বুকের সমস্যায় কম ভোগে। তাই একে শিশুর প্রথম টিকা বলা যায়।

source:beshto

Sharing is caring!

Comments are closed.

error: Content is protected !!