শিশুর ত্বকে কোনটি ভালো? তেল, লোশন নাকি ক্রিম?

মুরব্বিরা বলেন, শীতের দিনে শিশুর শরীরে ভালো করে তেল মেখে রোদে ফেলে রাখো। আবার কেউ নিয়ে আসেন বিদেশি ব্র্যান্ডের বেবি লোশন বা ক্রিম। কিন্তু এই সময়ে শিশুদের ত্বকের জন্য উপকারী কোনটি—তেল, লোশন না ক্রিম?

তেল, লোশন বা ক্রিমের মধ্যে মৌলিক পার্থক্য পানির পরিমাণ নিয়ে। তেলে জলীয় অংশ নেই বললেই চলে। ক্রিমে কিছুটা জলীয় অংশ আছে। তবে লোশনে বেশির ভাগটাই জলীয় অংশ। তাই আপনার শিশুর ত্বক যদি খুব শুষ্ক হয় কিংবা আপনি যদি চান অনেকক্ষণ ধরে ত্বককে শুষ্কতা থেকে বাঁচাতে, তবে তেলই সঠিক সমাধান। এর চেয়ে কম সময়ের জন্য হলে ক্রিম আর খুব অল্প সময় ত্বককে শুষ্কতা থেকে রক্ষা করবে লোশন। তেলে বা ক্রিমে ত্বকে পিচ্ছিল ভাব থাকে, তাই শিশুকে নিয়ে যখন কয়েক ঘণ্টার জন্য কোথাও বাইরে যাবেন, তখন লোশন লাগানোই ভালো। আবার যাদের ত্বক অতি সংবেদনশীল, তাদের জন্যও লোশন উপযোগী।

অনেকের ধারণা, তেল মালিশ করলে হাড় শক্ত হবে। কিন্তু এর বৈজ্ঞানিক ভিত্তি নেই। তবে শুষ্কতা প্রতিরোধে তেল লাগাতেই পারেন। এ ক্ষেত্রে মিনারেল অয়েল নয়, উদ্ভিজ্জ তেল লাগানো উচিত। সরিষার তেল খুব ঘন বলে লোমকূপ বন্ধ করে দিয়ে ত্বকে সংক্রমণ ঘটাতে পারে, তাই অলিভ অয়েল হতে পারে ভালো সমাধান। অবশ্য যেকোনো তেল দিলেই ত্বক আঠালো হয়ে যায়, এতে সহজেই ধূলিকণা জমে। তাই বাইরে গেলে তেল লাগানো উচিত নয়। তেল লাগানোর ভালো সময় হচ্ছে গোসলের পর। এ সময় ত্বকে সবচেয়ে বেশি জলীয় অংশ থাকে। আর এই জলীয় অংশকে অনেকক্ষণ ধরে রাখে তেল। অন্য সময়ের জন্য ক্রিম সবচেয়ে ভালো। এতে তেলচিটচিটে ভাব নেই আর মোটামুটি অনেকটা সময় ধরেই এটি কার্যকর।

ডা. আবু সাঈদ
শিশু বিভাগ, ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল
collect: healthprior21

Sharing is caring!

Comments are closed.