শিশুদের র’ক্তস্বল্পতা হলে কী করবেন?

র’ক্ত স্বল্পতা বা র’ক্তশূন্যতা শিশুদের একটি প্রচলিত সমস্যা। যদি সময়মতো চিকিৎসা না করা হয় এটি প্রা’ণঘা’তী হতে পারে। এটি শিশুর বৃদ্ধিকে বা’ধাগ্রস্ত করে। শিশুর শরীরে অপুষ্টি হলে র’ক্তস্বল্পতা হয়।

তবে এটিই একমাত্র র’ক্তস্বল্পতার কারণ নয়। কোনো কারণে র’ক্তপাত হওয়া, জি’নগত কারণ এবং আয়রনের শোষণের অভাবেও এই সমস্যা হয়।

ক্লান্তিবোধ, অবসন্নতা, বি’রক্তিভাব, ভ’ঙ্গুর নখ, ক্ষুধামন্দা শিশুদের র’ক্তস্বল্পতার লক্ষণ। সাধারণত ৯ থেকে ২৪ মাসের শিশুরা এই সমস্যায় বেশি আ’ক্রা’ন্ত হয়। কিছু খাবার রয়েছে যেগুলো শিশুর র’ক্তস্বল্প’তা প্রতিরোধে সাহায্য করে। বোল্ডস্কাই ওয়েবসাইটের প্রেগনেন্সি অ্যান্ড প্যারেন্টিং বিভাগে প্রকাশিত হয়েছে এই সংক্রান্ত একটি প্রতিবেদন।

আয়রনের মাত্রা বাড়ানো

মায়ের বুকের দুধে উচ্চ পরিমাণ আয়রন রয়েছে। র’ক্তস্বল্পতা প্রতিরোধে শিশুকে বুকের দুধ খাওয়ান। পাশাপাশি যেসব খাবারের আয়রন রয়েছে সেগুলো খাওয়ান। যেমন : ডিমের কুসুম, মাংস, শিম ইত্যাদি।

ভিটামিন সি

শিশুকে ভিটামিন সি সমৃদ্ধ ফল এবং সবজি খাওয়ান। যেমন : পেয়ারা, কমলালেবু, লেবু, আমলকি, অ্যাভোকেডো ইত্যাদি।

ডালিম

ডালিমের মধ্যে রয়েছে উচ্চ পরিমাণ আয়রন এবং খনিজ পদার্থ। এর মধ্যে ভিটামিন সি রয়েছে। র’ক্তস্বল্পতা প্রতিরোধে এটি একটি ভালো ফল। শিশুকে ডালিমের জুসও তৈরি করে খাওয়াতে পারেন।

গুড়

যেসব শিশু র’ক্তস্বল্পতায় ভুগছে তাদের জন্য গুড় একটি ভালো খাবার। এটি আয়রনের একটি চমৎকার উৎস। তাই র’ক্তস্বল্পতা প্রতিরোধে এটি নিয়মিত খাওয়াতে পারেন।

cl-ntv

Sharing is caring!

Comments are closed.

error: Content is protected !!